Monthly Archives: December 2010

মোবাইল ফোন ও মিসডকল

অযথা মিসডকল দিয়ে কাউকে বিরক্ত করা জায়েয নেই
বিনা প্রয়োজনে কাউকে মিসডকল দেওয়া গুনাহ ও নাজায়েয। কেননা বিনা প্রয়োজনে মিসডকল দেওয়ার দ্বারা যাকে মিসডকল দেওয়া হচ্ছে তাকে বিরক্ত করা হয়। তার একাগ্রতায় ব্যাঘাত ঘটানো হয়। তার খাওয়া-দাওয়া, আরাম-নিদ্রা মারাত্মকভাবে ব্যাহত হয়। অথচ হাদীস শরীফে নবীজি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, ‘প্রকৃত মুসলমান সেই ব্যক্তি যার হাত ও মুখের অনিষ্ট থেকে অপর মুসলমান নিরাপদ থাকে’। Continue reading

সত্য অবিনাশী

সত্যকে যারাই ধ্বংস করতে এসেছে তারাই ধ্বংস হয়ে গেছে। ইতিহাসে তার ভুরি ভুরি দৃষ্টান্ত আছে। সত্যের পথে বাঁধা সৃষ্টি করে কোন শক্তিই টিকে থাকতে পারেনি। সে শক্তি যত বড় প্রতাপশালীই হোক না কে, ফুৎকারে উড়ে গেছে, নিশ্চিহ্ন হয়ে গেছে। সত্যের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ অসম্ভব। সত্যের গতি অপ্রতিহত। দুনিয়াতে আজ পর্যন্ত এমন দৃষ্টান্ত নেই যে সত্য নিশ্চিহ্ন হয়ে গেছে। ইংরেজীতে একটা কথা আছে “Truth Shall Preveil” সত্যজয়ী হবেই। পরাজিত করা যায় না সত্যকে। সত্যের অভিধানে পরাজয়ে কথাটা নেই। সত্যের এই অপরাজেয় রূপ আমরা ইতিহাসে দেখি। সত্যের বাণী চির অম্লান। সত্যকে লক্ষ্য করে যত কটুক্তিই করা হোক না কেন, তাকে কোন মালিন্যই স্পর্শ করতে পারে না। যত আবর্জনাই তার দিকে নিক্ষেপ করা হোক না কেন সবগুলোর নিক্ষেপকারীর দিকে ফিরে আসে। Continue reading

কুরআনের আলো

৬৭. আর স্মরণ কর, যখন মূসা তার কওমকে বলল, ‘নিশ্চয় আল্লাহ তোমাদেরকে নির্দেশ দিচ্ছেন যে, তোমরা একটি গাভী যবেহ করবে’।১ তারা বলল,  ‘তুমি কি আমাদের সাথে উপহাস করছ?’ সে বলল, ‘আমি মূর্খদের অন্তর্ভুক্ত হওয়া থেকে আল্লাহর আশ্রয় চাচ্ছি।’ ২
ব্যাখ্যা: ১ এই আয়াতের ‘বাকারাহ’ (গাভী) শব্দ থেকেই এই সূরার নামকরণ করা হয়েছে।
২. এখানে উল্লেখিত ঘটনাটি সংক্ষেপে এই যে, বনী ইসরাঈলের মধ্যে একটি হত্যাকান্ড ঘটেছিল; কিন্তু হত্যাকারীকে সনাক্ত করা যাচ্ছিল না। তাই তারা মূসা আলাইহিস সালামের স্মরণাপন্ন হয়। আল্লাহ তাআলা তাদেরকে দিয়ে একটি গাভী যবেহ-এর মাধ্যমে নিহত লোকটিকে জীবিত করে তার হত্যাকারীর পরিচয় উদ্ঘাটন করান। এটি ছিল একটি অলৌকিক ঘটনা। Continue reading

আসুন, পরিচয়টা সেরে নেই!

জিয়াউল হক
প্রিয় রাসূলুল্লাহ (সা:) একবার তাঁর এক হাদীসে বলেছেন, ‘ ইসলাম সূচিত হয়েছিল অপরিচিত ও অনাত্মীয় পরিবেশে, এবং সে (ইসলাম) আবারও সেরকম প্রাথমিক সূচনাকালের অবস্থায় ফিরে আসবে’।
যতটুকু মনে করতে পারি তা হলো, মুসলিম শরীফে এই হাদীসটি বর্নিত হয়েছে আবু হুরায়রা থেকে। হাদীসটি নিয়ে বেশিদূর যাবার চেষ্টা করবনা কারণ, সে বিষয়ে আমি কোন বিশেষজ্ঞ নই বরং কুরআন হাদীসের ব্যাপারে আমার জ্ঞান মাত্রারিক্ত কম। অতএব নিজের ওজন বুঝেই কথা বলব ইনশা আল্লাহ। Continue reading

***আশূরাঃ বিশ্বাসীদের বিজয় দিবস***

আশূরা কি এবং কেন এই দিনটি এত গুরুত্বপূর্ণ সেই সম্পর্কে আমাদের অনেক মুসলিম ভাইদের মাঝে সঠিক এবং স্বচ্ছ কোন ধারণা নেই। আশুরা নিয়ে পত্রিকাতে বিশেষ সংখ্যা বের করা হয় আর তাতে ঘুরে ফিরে কারবালার কাহিনীটাই প্রধান প্রতিপাদ্য বিষয় হিসেবে লক্ষ্য করা যায়। আশূরা এমন একটি দিন যেই দিনটি রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামও গুরুত্ব দিয়েছেন কিন্তু একটি বিষয় লক্ষ্যনীয় সেই সময় কিন্তু কারবালার ঘটনাটি ঘটে নি। অর্থাৎ, কারবালার ঘটনা আশূরার সাথে সম্পৃক্ত কোন বিষয় নয়। তাহলে প্রকৃতপক্ষে কোন ঘটনাটি আশূরার সাথে সম্পৃক্ত? আজ আমরা এই বিষয়টি বিস্তারিত আলোচনা করবো; ইনশা আল্লাহ। Continue reading

প্রশ্নোত্তর ডিসেম্বর 2010

প্রশ্ন: পূর্বে অর্থের অভাবে আমার এবং আমার ছেলে-মেয়েদের আকীকা করা সম্ভব হয়নি। এখন আকীকা করা জরুরি কি না? কুরআন ও সুন্নাহর আলোকে জানতে চাই। আব্দুল্লাহ কুয়েত Continue reading