আপনার জিজ্ঞসার জবাব

প্রশ্ন: মানুষ মারা গেলে পরিবারের পক্ষ থেকে খাবারের বিশেষ আয়োজন করা হয়ে থাকে। যেমন ব্যক্তির মৃত্যুর তিন দিনের দিন শুকনো খাবার চিরা-মুড়ি ফল-মূল ইত্যাদি পাড়া-প্রতিবেশিদের মাঝে বিতরণ করা হয়। আবার চল্লিশতম দিনে বিশাল আয়োজন করা হয়; সেখানে গরীব-দুঃখী, পথিক, সমাজের সর্বস্তরের লোককে দাওয়াত দেয়া হয়। এই বিষয়টিও কুরআন ও সুন্নাহর আলোকে জানাবেন। Continue reading আপনার জিজ্ঞসার জবাব

হাদীসে রাসূল

০৫.    হাদীস কাকে বলে?
পূর্বে প্রকাশিতের পর
সুন্নাহর এই সংজ্ঞা নির্ণয়ের ক্ষেত্রে হাদীস বিশেষজ্ঞগণের দৃষ্টিভংগিই কাজ করেছে। মূলত তাঁরাই হাদীস শিক্ষাদান, সংগ্রহ, সংকলন ও যাচাই বাছাইর কাজ করেছেন। তাঁদের দৃষ্টিভংগি ছিলো মানব জাতির নেতা ও সর্বোত্তম আদর্শ হিসেবে আল্লাহর রসূলের সীরাত, জীবনাদর্শ, চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য, স্বভাব প্রকৃতি, দৈহিক বৈশিষ্ট্য, তাঁর বাণী, কর্ম ও আচরণসমূহের আলোচনা। তাঁদের হাদীস চর্চার সামগ্রিক ক্ষেত্রে কোন্ হাদীসগুলো শরিয়তের বিধান সম্বলিত আর কোন্গুলো সাধারণ উদ্দেশ্য ও আদর্শ সম্বলিত- সেই বিষয়ের প্রতি তাঁদের ভ্রƒক্ষেপ ছিলোনা। রসূলুল্লাহ্ (সাঃ)-এর সমগ্র জীবনাদর্শই ছিলো তাঁদের লক্ষ্য। আর সে হিসেবেই তাঁরা সুন্নাহর সংজ্ঞা নির্ধারণ করেছেন। তাঁদের দৃষ্টিতে রসূলুল্লাহ্ (সাঃ)-এর গোটা জীবনাদর্শই তাঁর সুন্নাহ্। তাঁরা হাদীস এবং সুন্নাহ্কে একই দৃষ্টিতে দেখেছেন। Continue reading হাদীসে রাসূল

কুরআনের আলো

৭৪. অতঃপর তোমাদের অন্তরসমূহ এর পরে কঠিন হয়ে গেল যেন তা পাথরের মত, কিংবা তার চেয়েও শক্ত। আর নিশ্চয় পাথরের মধ্যে কিছু আছে, যা থেকে নহর উৎসারিত হয়। আর নিশ্চয় তার মধ্যে কিছু আছে যা চূর্ণ হয়। ফলে তা থেকে পানি বের হয়। আর নিশ্চয় তার মধ্যে কিছু আছে যা আল্লাহর ভয়ে ধ্বসে পড়ে।১! আর আল্লাহ তোমরা যা কর, সে সম্পর্কে গাফেল নন। Continue reading কুরআনের আলো

বাবার স্মরণে

শরীফ উল্লাহ
হে আদর্শবান বাবা তোমায় সর্বদা করছি স্মরণ,
হৃদয়ে অমর তুমি যদিও হয়েছে, তোমার মরণ।
পৃথিবীতে কোন বাবাই নয় চিরজীবি,
সকালে উদিত হয়ে সন্ধ্যায় অস্ত যায় রবি। Continue reading বাবার স্মরণে

“ইভটিজিং ও তার প্রতিকার”

সাম্প্রতিককালে বাংলাদেশে ইভটিজিং শব্দটি সর্বাধিক আলোচিত। টিভির পর্দায়, দৈনিক বার্তার পাতায় ও ইন্টারনেটে, ব্লগ কিংবা ফেসবুকে প্রবেশ করলেই এই মহামারির ভয়াল চিত্র দেখতে পাওয়া যায়। মিডিয়াতে দৃষ্টি দিলেই দেখা যায় ইভটিজিং এর প্রতিবাদ করায় ইভটিজারের হাতে শিক্ষকের মৃত্যু, (যৌন সন্ত্রাসের প্রথম শিকার ছাত্রীর শিক্ষক নাটোরের কলেজ শিক্ষক মিজানুর রহমান) মায়ের মৃত্যু, (যৌন সন্ত্রাসের দ্বিতীয় শিকার মেয়ের মা  গোপাল গঞ্জের চাঁপা রানী) আত্মীয়-স্বজনের মৃত্যু (যৌন সন্ত্রাসের তৃতীয় শিকার কুরিগ্রামের ছাত্রীর বয়োবৃদ্ধ নানা) এবার যৌন সন্ত্রাসের শিকার দিনাজপুরের ৫ম শ্রেণীর ছাত্রী শাবনুর। এ অপমান সইতে না পেরে শাবনুর ঘরে ফিরে রাতে ঘরের বর্গার সাথে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে। Continue reading “ইভটিজিং ও তার প্রতিকার”