Monthly Archives: February 2011

মাতৃভাষার অধিকারঃ ইসলামের দৃষ্টিভঙ্গি

অধ্যাপক মাওলানা আবুল কালাম আযাদ
মা, মাতৃভূমি ও মাতৃভাষা মানুষের অস্তিত্বের এ তিনটি প্রধান অবলম্বন। মানুষের জীবন হচ্ছে তার মাতৃভাষা, দেশের ভাষা, জাতির ভাষা। মানুষের যতগুলো জন্মগত অধিকার আছে সেগুলোর অন্যতম হচ্ছে মাতৃভাষার অধিকার। নিজের মতো করে কথা বলার অধিকার। স্বতঃস্ফূর্ত চেতনায় স্বাধীন মতপ্রকাশের অধিকার। এ অধিকার আল্লাহই মানুষকে দিয়েছেন। তবুও বিস্ময়কর ব্যাপার হচ্ছে, যুগে যুগে এই জন্মগত অধিকার হরণ করার হীন প্রচেষ্টা চলেছে আমাদের এই স্বাধীনচেতা বীর বাঙালিদের ভূখণ্ডে। Continue reading

প্রশ্নোত্তর

প্রশ্ন: ভারত উপমহাদেশ তথা বাংলাদেশ, পকিস্তান, ইণ্ডিয়া প্রভৃতি দেশে শবে মে‘রাজ, শবে বরাত, শবে কদর সময় দিন-রাতে খাওয়া-দাওয়ার বিশেষ আয়োজন করা হয়, তা ছাড়া যিকির ও মিলাদের আয়োজন করা হয়। এইতো কিছু দিন পূর্বে শবে বরাত গেল। এ সময় কুয়েতের ‘গ্রীন’ এরিয়ার মসজিদের ইমাম বললেন, শবে বরাতকে কেন্দ্র করে কোন ইবাদত করলে বেদ‘আত হবে! অথচ আমি নিজেও শবে বরাত উপলক্ষে তিনটি রোযাসহ নামায দোয়া পালন করেছি। আলহামদুলিল্লাহ
আরবেরটা না দেখে যদি বাংলাদেশেরটা দেখি বেদ‘আত হবে কেন? মানুষতো এমনিতেই ইবাদত বন্দেগি করে না, অতএব আল্লাহর কাছে ছাওয়াবে উদ্দেশ্যে যদি কেউ শবে বরাতে বা মে‘রাজে রোযা-নামায পালন করে, এই ইবাদত কী বেদ‘আত হবে? কুয়েতী ইমাম সাহেবসহ অন্যান্যরা বলছেন; এমন ইবাদত রাসূল ও তাঁর সাহাবা থেকে প্রমাণিত না। এখানে আমার প্রশ্ন হলো, তাহলে কিভাবে সারা পৃথিবীতে শবে মে‘রাজ ও শবে বরাতের গুরুত্ব প্রচার হলো? আচ্ছা যদি ঐ দিনগুলোতে ফযীলতের উদ্দেশ্যে রোযা-নামায আদায় করলে মানুষের অন্তরে ইসলামের বড়ত্ব প্রতিষ্ঠিত হয়, এই নিয়তেও কি ইবাদত করা যাবে না? বিষয়টির সঠিক উত্তর প্রদান করে আমাদের উপকৃত করবেন।
মুহাম্মাদ নিজামুদ্দীন ‘গ্রীন’ কুয়েত
Continue reading

মোবাইল ফোন ও ফ্লেক্সিলোড

মুহাম্মাদ মুফিজুল ইসলাম
ফ্লেক্সিলোড করে ফ্লেক্সিকৃত অর্থের চেয়ে বেশি গ্রহণ করা জায়েয
ফ্লেক্সিলোড করে ফ্লেক্সিকৃত অর্থের চেয়ে বেশি টাকা গ্রহণ করা ব্যবসায়ীর জন্য জায়েয। এরূপ করা সুদ নয়। কেননা এটা মূলত কম টাকার বিনিময়ে বেশি টাকা গ্রহণ নয়। বরং এটা হচ্ছে, নির্ধারিত অঙ্কের আউটগোয়িং সেবা যা বিক্রয়যোগ্য। তাই এটা নির্ধারিত অঙ্কের বেশিতে লেনদেন করা সুদ নয়। কিন্তু কোম্পানির পক্ষ থেকে লোডকারী ব্যবসায়ীকে যেহেতু নির্ধারিত হারে কমিশন দেওয়া হয় এবং গ্রাহক থেকে এ বাবদ কোনো টাকা লওয়া কোম্পানি কর্তৃক নিষিদ্ধ তাই ব্যবসায়ীর জন্য ফ্লেক্সিকৃত অর্থের চেয়ে বেশি লওয়া উচিত নয়। [ফতহুল কাদীর, খণ্ড ঃ ৬, পৃষ্ঠা ঃ ১৫৯  তাকমিলাতু ফাতহুল মুলহিম, খণ্ড ঃ ১, পৃষ্ঠা ঃ ৪০০]   Continue reading

প্রসঙ্গ: হিল্লা বিয়ে

প্রশ্ন : হুজুর, আমার সালাম নিবেন। আমার প্রশ্ন হচ্ছে – ইসলামের সকল হুকুমের তাতপর্য অনেকটাই বুঝে আসে। কিন্তু তালাকের বিষয়টা ছাড়া। তা হল রাগের মাথায় তালাক বল্ল সামী (জামাই) , কিন্তু হিল্লা হতে বা করতে হয় নারী কে। এই বিষয়টা বুঝিয়ে বললে খুশি হব।

আপনার হায়াতে তাইয়েবা কামনা করছি। আজ এই পর্যন্তই। Continue reading

ইসলামে মাতৃভাষার মর্যাদা

ড. নজরুল ইসলাম খান আল মারূফ
মানুষের মনের অভিব্যক্তি প্রকাশের ধ্বনিকে ভাষা বলে। মানবজাতি কখন কোথায় ভাষা ব্যবহার করেছে সে ইতিহাস ভাষাতাত্ত্বিকদের অজানা। ভাষার উদ্ভব উৎস তাদেরকে অনুসন্ধানী করেছে বটে; কিন্তু ভাষার আবির্ভাবতত্ত্বের কোন সঠিক ও নির্ভরযোগ্য তথ্য আবিষ্কার করা যায় নি। নানা ধরনের থিওরী বা তত্ত্ব আবিষ্কারের মোদ্দাকথা হচ্ছে ভাষা আল্লাহ প্রদত্ত, এর সৃষ্টিকর্তা আল্লাহ তা‘আলা। পৃথিবীতে বহু ভাষার প্রচলন ও মানব জাতির ভাষার ভিন্নতা আল্লাহ তা‘আলার অপার কুদরতের একটি শ্রেষ্ঠ নিদর্শন। আল্লাহ বলেন, ‘আর তারই কুদরতের অন্যতম নিদর্শন হচ্ছে নভোমন্ডল ও ভূমন্ডলের সৃজন এবং পৃথক হওয়া তোমাদের ভাষা ও বর্ণের। নিশ্চয়ই এতে কুদরতের নিদর্শনসমূহ রয়েছে জ্ঞানবানদের জন্যে। (সুরা রূম: ২২) Continue reading

আমরা কেমন মুসলমান ?

মাসুদা সুলতানা রুমী
ফারজানা এসেই আমাকে জড়িয়ে ধরল, ‘কেমন আছিস?’ হাসি মুখে ‘ভালো আছি’ বলে ওকে ধরে সোফায় বসালাম। বললাম ‘তারপর তুই কেমন আছিস? বাচ্চারা কেমন আছে? প্রফেসর সাবেব কেমন আছেন?
‘সব ভালো- সব ভালো’ বলে কন্ঠস্বর একটু নিচু করে আবার বলল,‘বাসায় অনেক লোকজন মনে হচ্ছে। মেহমান এসেছে বুঝি? বললাম ‘হ্যাঁ আমার ভাসুর, জা, আর তাদের ছেলে মেয়ে…’ Continue reading

নবীগণের পর শ্রেষ্ঠ মানুষদের ইতিহাস (৫)

আলী ইবন আবী তালিব (রা)
পর্ব : ১
নাম আলী, লকব আসাদুল্লাহ, হায়দার ও মুরতাজা, কুনিয়াত আবুল হাসান ও আবু তুরাব। পিতা আবু তালিব আবদু মান্নাফ, মাতা ফাতিমা। পিতা-মাতা উভয়ে কুরাইশ বংশের হাশিমী শাখার সন্তান। আলী রাসূল (সা) আপন চাচাতো ভাই। Continue reading

নবীগণের পর শ্রেষ্ঠ মানুষদের ইতিহাস (৫)

আলী ইবনে আবি তালিব (রাঃ)
(২য় পর্ব)
সপ্তম হিজরীতে খাইবার অভিযান চালানো হয়। সেখানে ইয়াহুদীদের কয়েকটি সুদৃঢ় কিল্লা ছিল। প্রথমে সিদ্দীকে আকবর, পরে ফারুকে আজমকে কিল্লাগুলি পদানত করার দায়িত্ব দেওয়া হয়। কিন্তু তারা কেউ সফলকাম হতে পারলেন না। নবী (সাঃ) ঘোষনা করলেন ঃ ‘কাল আমি এমন এক বীরের হাতে ঝান্ডা তুলে দেব যে আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের প্রিয়পাত্র। তারই হাতে কিল্লাগুলির পতন হবে।’ পরদিন সকালে সাহাবীদের সকলেই আশা করছিলেন এই গৌরবটি অর্জন করার। হঠাৎ আলীর ডাক পড়লো। তাঁরই হাতে খাইবারের সেই দুর্জয় কিল্লাগুলির পতন হয়। Continue reading

হাদীসে রাসূল সুন্নতে রাসূল

০৭    মুহাদ্দিসগণের সংজ্ঞা অনুয়ায়ী সুন্নতের উদাহরণ
মুহাদ্দিসগণ মনে করেন আল্লাহর রাসূলের সমগ্র জীবনাচরণ এবং জীবনাদর্শই তাঁর সুন্নত। সে হিসেবে তাঁর ব্যক্তিগত চাল চলন, কথাবার্তার বৈশিষ্ট্য, লেনদেনের বৈশিষ্ট্য, বিয়ে শাদীর বৈশিষ্ট্য, সামাজিক আচরণ, ইসলামি সমাজ প্রতিষ্ঠার কর্মকৌশল, রাষ্ট্র পরিচালনা, রাষ্ট্র পরিচালনার বৈশিষ্ট্য, ব্যবসা বাণিজ্যের নিয়ম কানুন, অর্থনৈতিক বিষয়াদি, শিশুদের সাথে তাঁর আচরণ, স্ত্রীদের সাথে আচরণ, সহকর্মীদের সাথে আচরণ, শত্রুদের সাথে আচরণ, ইবাদত বন্দেগির বৈশিষ্ট্য ও নিয়ম কানুন এবং সামগ্রিক বিষয়াদিতে তাঁর প্রচলিত নিয়ম কানুন ইত্যাদির সবই তাঁর সুন্নাহ। Continue reading

কুরআনের আলো

৭৭. তারা কি জানে না যে, তারা যা গোপন করে এবং যা প্রকাশ করে, তা আল্লাহ জানেন?
৭৮. আর তাদের মধ্যে আছে নিরক্ষর,১  তারা মিথ্যা আকাঙ্খা ছাড়া কিতাবের কোন জ্ঞান রাখে না এবং তারা শুধুই ধারণা করে থাকে।২
১. এখানে ইহুদীদের দ্বিতীয় ধরণের লোকদের তথা জনসাধারণের অবস্থা বর্ণিত হয়েছে। আর প্রথম ধরণের দলটি ছিল তাদের আলেম-ওলামা ও শরীয়তের ব্যাখ্যাতাদের, যার উল্লেখ ছিল ৭৫নং আয়াতে।
২. আল্লাহর কিতাবের কোনো জ্ঞানই তাদের ছিল না, তাতে দ্বীনের  কি বিধি-বিধান রয়েছে, চারিত্রিক সংশোধন ও শরীয়তের নিয়ম-নীতি তথা মানবজীবনের প্রকৃত সাফল্য ও ব্যর্থতা কিসের উপর নির্ভরশীল, তার প্রতি তাদের মোটেও মনোযোগ ছিল না। ওহীর জ্ঞানের প্রতি আগ্রহী না হয়ে তারা নিজেদের ইচ্ছা-আকাঙ্খা অনুসারে নিজেদের মনগড়া কথাগুলোকে দ্বীন মনে করতো, আর মিথ্যামিথ্যি রচিত কিস্সা-কাহিনী আর ধারণা-অনুমানের উপর ভর করে কালাতিপাত করতো।
এখানে গভীর আশঙ্কার সাথে উল্লেখ্য যে, বর্তমান বৃহত্তর মুসলিম জনগোষ্ঠির অবস্থাও অনেক ক্ষেত্রে অত্যন্ত দুঃখজনকভাবে অনুরূপ, যা আমাদের চলমান সামগ্রিক অধঃপতনের অন্যতম কারণ। এ পরিস্থিতি থেকে অনতিবিলম্বে আমাদের বেরিয়ে আসতে হবে, আমাদের অস্তিত্ব রক্ষা এবং প্রকৃত কল্যাণের স্বার্থেই। Continue reading