ভালবাসি আল-হুদাকে

ভালবাসি ভোরের আযান
পাখির কুহুতান,
ভালবাসি জ্যোছনা রাতের
ফুলের মিষ্টি ঘ্রাণ।
ভালবাসি মায়ের মুখের
কুরআন তেলাওয়াত,
ভালবেসে আল-হুদাকে
পড়ি সারা রাত।
প্রতি মাসে আল-হুদাকে
যখন আমি পড়ি
আল-হুদাকে পড়ে আমার
হৃদয়টা যায় ভরি।
বলবো আমি সবাই মিলে
আল-হুদাকে পড়ি,
ইসলামেরই রশিটাকে
শক্ত হাতে ধরি।
অজানা সব বিষয়গুলো
জানতে ও ভাই ওরে!
প্রশ্ন কর আল-হুদাকে
সমাধানের তরে।
অজ্ঞতায় যদি থাক তুমি
হাদীস ও কুরআন,
আশা করি পাবে তুমি
সঠিক সমাধান।
দো-জাহানের মালিক আল্লাহ
রহীম ও রহমান
আল-হুদাকে দাও তুমি
মর্যদা ও সম্মান।

ধন-দৌলত ও নারী পরীক্ষার বস্তু

ধন-দৌলত আল্লাহ তা‘আলার নেয়ামতসমূহের মধ্যে অন্যতম নেয়ামত। প্রত্যেক বস্তুর যেমন স্ব-স্ব প্রকৃতি বা স্বভাব রয়েছে, তেমনি ধন-দৌলত ও নারীর প্রকৃতি ও স্বভাব রয়েছে। আর তা হলো: মানুষের- এর প্রতি মোহ বা আকর্ষণ, যা সহজেই মানুষকে আল্লাহর স্মরণ ও পথকে ভুলিয়ে দেয়। Continue reading ধন-দৌলত ও নারী পরীক্ষার বস্তু

মানুষ কী মানুষের শত্রু?

শেষ পর্ব
উপর্যুক্ত আয়াতটির বাংলা অর্থ বুঝি বা না বুঝি, কিন্তু আরবী ভাষায় আয়াতটির সঙ্গে আমরা প্রায় সব মুসলমানই পরিচিত হলেও, তার তাৎপর্য আমরা অনেকেই জানি না। একজন গর্ভধারিণী “মা-জননী” তার গর্ভের সন্তানটিকে ধারণ করে রাখেন মাত্র নয়-দশমাস, আর তার জন্মভূমির “মা-মাটি” নিজ বুকে ধারণ করে রাখেন অনন্তকাল। আর কেউ যদি সেই “মা-মাটির” সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করে বা বেঈমানী করে, তাহলে সেই “মা-মাটি” তাকে কখনই ক্ষমা করার কথা নয়। তার কবর নামক বুকের ভিতরে ঢুকলেই এক পিষায় সেই বেঈমানের হাড়-হাড্ডি গুড়ো করে ছাতু বানিয়ে ফেলতে পারে। তাই আসুন, আমরা আমাদের গর্ভধারিণী “মা-জননী-কে” যেমনিভাবে ভালবাসি, ঠিক তেমনিভাবেই আমরা আমাদের প্রাণপ্রিয় জন্মভূমির “মাটি” তথা “দেশ ও জাতিকে” ভালবাসবো। জীবন গেলেও আমরা “মা-মাটি” তথা দেশ ও জাতির সাথে মুনাফিকী করবো না । আমরা আমাদের শপথ বা কৃত অঙ্গীকারকে বেঈমানী করে, সেই বেঈমানীর মূল্য যত তুচ্ছই হোক, আর যত বেশিই হোক, কোন মূল্যেই বিক্রি করবো না। নিজের সামান্য স্বার্থের মোহে অন্ধ হয়ে পিলখানা বিডিআর সদর দপ্তরের মত আর কোন ভাই-বোনের শরীরের রক্ত পান করবো না এবং কাঁচা গোশ্তগুলো চিবিয়ে খাবো না। যেটা আমাদের দেশ ও জাতির মহাশত্রুরা সর্বদাই আশা করবে। এটাই হোক আমাদের আজকের নতুন প্রজন্মের সুদৃঢ় অঙ্গীকার। শপথ বিক্রি সম্পর্কে আমাদের প্রতিপালক দয়াময় আল্লাহ বলছেন ঃ Continue reading মানুষ কী মানুষের শত্রু?

আমরা কেমন মুসলমান?

মাসুদা সুলতানা রুমী
আমার ছোট ভাই মিজানের সাথে ছোট বেলা থেকেই একটা অসম্ভব ভালো সম্পর্ক ছিলো। বাইরের সব খবরাখবর আমি ওর কাছ থেকেই পেতাম। সারাদিন সময় না পেলেও অন্তত ঘুমের আগে ঘণ্টা খানেক ওর সাথে কথা বলতে না পারলে দিনটা যেনো আমার অপূর্ণ রয়ে যেতো। যদিও যার যার সংসার আর কাজ নিয়ে এখন আমরা খুবই ব্যস্ত। এই ঢাকা শহরে থেকেও আমাদের তেমন একটা দেখা সাক্ষাত হয় না। মোবাইল টেলেফোনে যেটুকু খোঁজ খবর নেওয়া । Continue reading আমরা কেমন মুসলমান?

হাদীসে রাসূল সুন্নতে রাসূল

১৪.    হাদীসের শ্রেণী বিভাগ
মুহদ্দিসগণ হাদীসকে নিম্নরূপ শ্রেণী বিভাগে ভাগ করেছেন :
১.    কর্মের ধরণগত শ্রেণী বিভাগ।
২.    সনদ ভিত্তিক শ্রেণী বিভাগ।
৩.    বর্ণনাকারীদের অবস্থা ও সংখ্যা ভিত্তিক শ্রেণী বিভাগ।
৪.    শুদ্ধতা অশুদ্ধতা ভিত্তিক শ্রেণী বিভাগ।
১. কর্মের ধরণগত শ্রেণী বিভাগ : প্রথমত রসূল সা.-এর কর্মের ধরণের ভিত্তিতে অর্থাৎ তাঁর কথা, কাজ ও অনুমোদন-এর ভিত্তিতে হাদীসকে তিনভাগে ভাগ করা হয়। সেগুলো হলো : Continue reading হাদীসে রাসূল সুন্নতে রাসূল